Breaking News

টেকনাফে সমুদ্র উপকূলে ঝোঁ;পের মধ্যে প্রা;চীন মসজিদ

কক্সবাজারের টেকনাফ মে;রিন ড্রাইভ সমুদ্রের পাড়ে প্রা;চীন ও ক্ষু;দ্রতম একটি মস;জিদের সন্ধান মিলেছে। উপজেলার বাহারছড়া ইউনিয়নের মাথাভা;ঙ্গা এলা;কায় অবস্থান এই মস;জিদের। সোমবার দুপুরে কয়েকজন যুবক জঙ্গ;লটি পরি;ষ্কার করে মসজিদটির পুরো চিত্র বের করে আনার চে;ষ্টা করে।

এলাকাবাসী জানান, প্রাচীন এই মস;জিদ সম্প;র্কে তারা পূর্ব পুরুষদের কাছ থেকে প্রজ;ন্মের পর প্রজন্ম শুনে আস;ছেন। এমন কি কয়েকশ বছর পুরনো মস;জিদ বলছিলেন তারা। মূলত মস;জিদটি জঙ্গলে ঢাকা ছিল বলে কেউ সেখানে যেতেন না। মসজিদ;টির আশপাশে গাছ ও তার শেকঁ;ড় অন্যান্য বনলতা যা ভবনটির বাই;রের অংশকে ঢেকে রেখেছে।

সরেজমিনে মসজিদের ভে;তরে ঢুকে দেখা যায়, মসজি;দটি এক গ;ম্বুজবি;শিষ্ট। মসজি;দটির দেয়ালঘেঁষে একটি বড় মিম্বার রয়েছে, বা;ইরের দৈর্ঘ্য (উত্তর-দক্ষিণ) মিম্বা;রসহ ১৬ফুট এবং বাইরের প্রস্থ (পূর্ব-পশ্চিম) ১২ফুট। মসজি;দটির ভেত;রের দৈর্ঘ্য ৭ফুট এবং প্রস্থ ৬ফুট। মসজি;দটির একটি মেহরাব রয়েছে এবং দেয়ালে ছোট ছোট কয়ে;কটি খোঁপ রয়েছে। মস;জিদটি পোড়া ইট, বালু, চুন এবং সুরকি দিয়ে নি;র্মিত হয়েছে বলে ধার;ণা করা হচ্ছে।

স্থানীয় বাসিন্দা মোহাম্মদ উল্লাহ জা;নান, পূর্ব পু;রুষদের কথা মতে এটি কয়েকশ বছর আগের পুরনো মস;জিদ। কিন্তু বাং;লাদেশ স্বাধীনতার পরও এখানে লোক;জন নামাজ আদায় করেছিল। এ প্রাচীন মস;জিদটি পু;রাকৃর্তি অক্ষুন্ন রেখে নতুন রূপে সংস্কার কর;লে সেটি ঐতিহ্য হয়ে থাকবে। সংস্কা;রের পর মস;জিদের ভেতরে প্রাচীন ক্ষুদ্র মসজি;দের পুরাকীর্তি দৃশ্য;মান হলে অনেক দেশি-বিদেশি দর্শনার্থী;রাও দেখতে ভিড় করবেন।

এলাকার প্রবীণ ব্যক্তি আ;জিম উল্লাহ বলেন,মসজিদটি অনেক বছ;রের পুর;নো। আমরা ছোট থেকেই শুনে আসছি এখানে একটা মস;জিদ আছে। পূর্ব পুরুষরা বলেছি;লেন,বহু বছরে বিদে;শ থেকে কয়েকজন পী;র সাহেব এদেশে এসে ইস;লাম প্রচার করতেন। রাতে সেখানে তারা আত্ম;গোপন করতেন। তারাই সম্ভব;ত এই মস;জিদটি তৈরি করেছিলেন নামা;জ আ;দায়ের জন্য।

টেকনাফ বাহারছড়া ইউ;নিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মৌলভী আ;জিজ উদ্দিন জানান, মেরিন ড্রাইভের পশ্চিমে বনলতা;র আড়ালে একটি মসজিদের স;ন্ধান মেলেছে। এটি যে ক্ষু;দ্রতম প্রাচীন মস;জিদ তাতে কোন সন্দেহ নেই। বিষয়টি সংশ্লিষ্ট ক;র্তৃপক্ষকে অবহিত করা হয়েছে। মেরিন ড্রাইভের পশ্চি;মে কোন ধরনের ভবন নির্মা;ণে নিষে;ধাজ্ঞা থাকায় মস;জিদটির সংস্কার করা যাচ্ছে না। অনুমতি পেলে এটি সংস্কারের উদ্যো;গ নেওয়া হবে। তিনি জানান, এটি সঠিক ব্যবস্থা;পনাসহ গুরুত্বপূর্ণ প্রত্ন নিদর্শন;গুলোকে সংরক্ষণ করে পর্যটক;দের সামনে তুলে ধরতে পারলে সরকা;রের রাজ;স্ব আ;য় বৃদ্ধি পাবে।

About admin

Check Also

চকলেট ভেবে ইঁদুর মা;রার ওষুধ খেল দুই বোন, প্রা;ণ গেল ছোট বোনের

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার না;সিরনগরে চকলেট ভেবে ইঁদুর মা;রার ওষুধ খেয়ে মারিয়া নামে দুই বছর বয়সী এক শিশুর …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *