ঘটনাটি পুরোপুরি জানলে হয়তো অনেকে অবাক হবেন

ঘটনাটি পুরোপুরি জানলে হয়তো অনেকে অবাক হবেন। সংসারে সচ্ছলতা ফেরায় নিজের বিধবা ভাতার কার্ডটি সমাজসেবা অফিসে ফেরত দিয়েছেন বগুড়ার লাজিনা বেওয়া নামের এক নারী।

গতকাল সোমবার দুপুরে বগুড়ার আদমদীঘি উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তার কাছে তার কার্ডটি ফেরত দেন। লাজিনা বেওয়া উপজেলার ছাতিয়ানগ্রাম ইউনিয়নের ধুলাতইর গ্রামের মৃত হাদিস আলীর স্ত্রী।

আদমদীঘি উপজেলার ছাতিয়ানগ্রাম ইউনিয়নের প্যানেল চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর আলম জানান, সবাই যখন পেতে ব্যস্ত, তখন তিনি (লাজিনা) ফেরত দিতে চান। এটা সত্যই আশ্চর্যজনক ঘটনা। তার ইউনিয়নে এমন ঘটনা কখনও ঘটেনি।

উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা শরিফ উদ্দীন জানান, দেশে এমন মানুষ বিরল। এ উপজেলায় এমন ঘটনা আগে কখনো ঘটেনি। বিধবা ওই নারীর এমন সীদ্ধান্ত খুব ভালো লেগেছে। তার হিসাব বন্ধের জন্য ছেলে মামানুর রশিদ মামুন লিখিত আবেদনসহ কার্ডটি ফেরত দিয়েছেন। তার আবেদনের ভিত্তিতে ওই হিসাব বন্ধ করে দেওয়া হবে। তবে ওই নারীকে দেখে সকলের শিক্ষা নেওয়া উচিত- ‘প্রয়োজন ছাড়া কোনো কিছু নেওয়া ঠিক নয়।’

লাজিনা বেওয়া জানান, ১৯৮২ সালে মাত্র ১০ শতাংশ সম্পত্তি রেখে স্বামী হাদিস আলী মারা যান। মাত্র ২২ বছর বয়সে বিধবা হন তিনি। ছোট দুটি মেয়ে ও ছয় মাস বয়সী ছেলে মামুনুর রশিদ মামুনকে ঘিরে নতুন করে বাঁচার স্বপ্ন দেখতে শুরু করেন। ছলে-মেয়েকে মানুষ করে গড়ে তুলতে ১৯৯৮ সালে বিধবাভাতার তালিকাভুক্ত হন। অনেক কষ্টের মাঝেই মেয়ে দুটিকে বিয়ে দেন।

এদিকে ছেলে মামুন পড়াশোনা শেষ করে সংসারে সচ্ছলতা ফেরাতে ২০১৪ সালে সরকারিভাবে (জিটুজি পদ্ধতিতে) মালয়েশিয়ায় পাড়ি জমান। দুই বছর পর দেশে ফিরে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে সহকারী শিক্ষক পদে চাকরি পান। এতে তার পরিবারে সচ্ছলতা ফিরে আসে। এর পর সীদ্ধান্ত নেন তিনি কার্ডটি ফেরত দেবেন। এতে প্রকৃতপক্ষে যাদের কার্ডটি প্রয়োজন তাদের কেউ পেলে উপকৃত হবেন।

About admin

Check Also

বিগ ব্রেকিংঃ গণপরিবহন চলাচলের ঘোষণা

রফতানিমুখী শিল্পের শ্রমিকদের ঢাকা আসার সু;বিধার্থে কয়েক ঘণ্টার জন্য গণপ;রিবহন চলাচলের অনুমতি দিয়েছে সরকার। শ্রমিক …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *