গোপন সম্পর্কে মা হওয়ার পর স্কুলছাত্রীকে বিয়ে করতে রাজি ‘ধর্ষক’

বরগুনার আমতলীতে বিয়ে ছাড়াই কন্যাসন্তান জন্ম দিয়েছেন নবম শ্রেণি পড়ুয়া এক ছাত্রী। বিয়ের প্রলোভনে তিনি ধর্ষণের শিকার হন অভিযোগ স্বজনদের। সোমবার দুপুরে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে শিশুটি জন্ম দেন ভুক্তভোগী ছাত্রী। তবে তাকে বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন অভযুক্ত ৩৫ বছর বয়সী বেল্লাল শিকদার।

ভুক্তভোগী স্কুলছাত্রীর স্বজনরা জানান, এক বছর আগে একই ইউনিয়নের বেল্লালর সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে ওই ছাত্রীর। একপর্যায়ে বিয়ের প্রলোভনে তাকে ধর্ণ করেন বেল্লাল। পরে অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়েন ভুক্তভোগী কিশোরী। তবে বষয়টি পরিবার কাছে গোপন রাখেন তিনি।

সোমবার সকালে প্রসব বেদনা শুরু হলে গোপনে স্কুলছাত্রীকে আমতলী উপজেলা স্বাস্থ্য কপ্লেক্সে ভর্তি করেন তার মা। দুপুরে একটি কন্যাসন্তানের জন্ম দেন তিনি। কিশোরীর মা বলেন, মেয়েটির অন্তসত্ত্বা হওয়ার বিষয়টি অনেক পরে জেনেছি। তখন কিছুই করার ছিল না। এখন অভিযুক্ত যুক আমার মেয়েকে বিয়ে করবে বলে জানিয়েছেন।

দুই পরিবার রাজি থাকলে সামজিকভাবে বিয়ের ব্যবস্থা করা হবে বলে জানিয়েছেন স্থানীয় ইউপি সদস্য ঝন্টু তালুকদার। আমতলী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চকিৎসক ডা. ফাতেমা শারমিন বলেন, হাসপাতালে ভর্তি হওয়া স্কলপড়ুয়া কিশোরী একটি কন্যান্তানের জন্ম দিয়েছে। মা ও সন্তান দুনই সুস্থ রয়েছে।

আমতলী থানার ওসি একেএম মজানুর রহমান বলেন, এ বিষয়ে অভিযোগ পেলে ভিযুক্তের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *