নি;খোঁজের ২২ বছর পর পরিবারে ফিরলেন ছালেহা

নিখোঁজ হয়েছিলেন প্রায় দুই যুগ আ;গে। ফিরে পাওয়ার আশা ছেড়েই দিয়েছিলেন পরিবারের লোকজন। কিন্তু ভা;গ্যে থাকলে সবই সম্ভব। অবশেষে ২২ বছর পর পরিবারের সান্নিধ্যে এলেন বৃদ্ধা ছালেহা বেগম (৬৫)। সো;মবার দুপুরে তাকে নিজ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করে পুলিশ। এ সময় পরিবা;রসহ এলাকায় আবেগ;ঘন পরিবেশের সৃষ্টি হয়।

জানা যায়, সরিষাবাড়ী উপজেলার ভাটা;রা ইউপির চর বাঙ্গালিপাড়া গ্রামের মৃত বিলাত রাজের মেয়ে ছালেহা বেগম। প্রায় ২৬ বছর আগে পৌরসভার মাইজবাড়ি গ্রামের রসুল মিয়া;র সঙ্গে তার বিয়ে হয়। বিয়ের ৪ বছর পর থেকেই স্বামী;র সঙ্গে দা;ম্পত্য কলহ শুরু হলে সালেহা বেগম বাবার বাড়িতে চলে যান।

পরিবারের লোকজন তাকে স্বামীর ঘরে ফিরে যাওয়ার পরা;মর্শ দিলে অভিমান করে বাবার বাড়ি থেকে তিনি নিরুদ্দেশ হন। উভয় পরিবার অনেক খোঁজা;খুঁজি করেও তাকে ফিরে পায়নি। এভাবে কেটে যায় ২২টি বছর। তার ফিরে পাওয়ার আশা প্রায় ছেড়েই দিয়েছিলেন সবাই।

সরিষাবাড়ী থানার ওসি মীর রকি;বুল হক জানান, ১৯৯৯ সালে মুন্সিগঞ্জের কাটাখালী গ্রামের একটি রাস্তায় দায়রা জজ আদালতের অ্যাডভোকেট দেলোয়ার হোসেন তাকে মানসিক ভার;সাম্যহীন অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখে উ;দ্ধার করে তার বাড়িতে নিয়ে যান। তখন তিনি তার নাম পরি;চয় বলতে পারেননি। এভাবে প;রিচয়হীনভা;বে কেটে যায় দীর্ঘদিন।

গত ২৭ সেপ্টেম্বর হঠাৎ তার স্মৃ;তি ফিরে আসে। তখন অ্যাডভোকেট দেলোয়ার হোসেনকে তার পরিচয় খু;লে বলেন। পরে ওই অ্যাভোকেট বিষয়টি সরিষাবাড়ী থানাকে অবহিত করেন। পু;লিশ বিষয়টি নিয়ে অনুসন্ধান চালি;য়ে ছালেহার পরিবারের সন্ধান পায়। পরে ছালেহার বড়ভাই সামছুল হক রাজ রোববার সরি;ষাবাড়ী থানায় একটি সাধারণ ডা;য়েরি করেন। পরে পুলিশ ছালেহা বেগমকে মুন্সিগঞ্জ থেকে উদ্ধার করে সোমবার দুপুরে পরি;বারের কাছে হস্তান্ত;র করে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *