বাদ যাননি বউ-শ্যালিকা, একসঙ্গে দুই বোনকেই বা;নালেন অন্তঃসত্ত্বা

পরিবারের পছন্দে বিয়ে করলেও কুনজর পড়ে শ্যা;লিকার ওপর। স্ত্রীর ছোট বোনের রূপ দেখে নিজেকে ঠি;ক রাখতে পারছিলেন না। দিতেন কু;প্রস্তাব। এর মধ্যেই চার মাসের অ;ন্তঃস;ত্ত্বা হয়ে পড়েন স্ত্রী। আর এ সুযোগে শ্যা;লিকাকে অপহরণ করেন দু;লাভাই। করেন মে;লামেশাও। এখন দুই বো;নই অন্তঃস;ত্ত্বা।

ঘটনাটি ময়ম;নসিং;হের ফুলপুর উপজেলার। অভি;যুক্ত যুবকের নাম আলম মিয়া। ৩০ বছর বয়সী আলম উপজেলার ফুলপুর ইউনিয়নের সদর ইউনিয়নের নগুয়া গ্রামের আহমাদ আ;লীর ছেলে। তিনি পেশায় একজন নি;র্মাণ শ্রমিক। শুক্রবার বিকেলে আলমকে ময়;মনসিংহ চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজি;স্ট্রেট আ;দালতে তোলা হয়। পরে তাকে কারা;গারে পাঠানোর নির্দেশ দেন বিচারক। এর আগে, বৃহস্পতিবার রাতে নিজ বাড়ি থেকে আ;লমকে গ্রেফ;তার করে পু;লিশ।

ফুলপুর থানার ওসি আব্দুল্লাহ আল মামুন জানান, বড় বো;নকে বিয়ের পর থেকেই আলমের কুদৃ;ষ্টি পড়ে শ্যালিকার ওপর। বিয়ের পর থেকে বিভিন্ন সময় কুপ্র;স্তাব দিতেন আলম। চার মাস আগে শ্যালিকা প্রাই;ভেট পড়তে কলেজের উদ্দেশে বাড়ি থেকে বের হন। ওই সময় তাকে অপহ;রণ করেন দুলাভাই। বিষয়টি জানতে পেরে আলমের মায়ে;র সঙ্গে যোগাযোগ করেন মেয়ের পরিবার। এরপর শ্যা;লিকাকে ফেরত দেবেন বলে জানান আলম। কিন্তু চার মাস পার হলেও ফে;রত দেননি।

শ্যালিকাকে আলম বি;য়ে করেছেন বলেও লোকমুখে শোনা যাচ্ছিল। এছাড়া দুই বোনই এখন অ;ন্তঃসত্ত্বা। এ ঘটনায় ফুলপুর থানায় মা;মলা করেন ভুক্তভোগীর স্ব;জনরা। পরে আলমকে গ্রেফ;তার করে পু;লিশ। ওসি আব্দুল্লাহ আল মামুন আরো বলেন, ভুক্তভোগীকে আদালতে হাজির করলে বাবার হেফা;জতে দেন বিচারক। এখন দুই বো;নই বাবার হেফা;জতে রয়েছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.