মায়ের জন্য পাত্র খুঁজছেন কলেজে পড়া মেয়ে!

যুগ যুগ ধরে প্রচলিত হয়ে আসছে, কন্যা সন্তানের জন্য পা;ত্র খুঁজেন বাবা-মা। ভালো পাত্র দেখে নিজের মে;য়েকে তুলে দিতে পারলে স্বস্তির নিঃশ্বা’স ফে;লেন তারা। তবে এবার ঘটলো সম্পূর্ণ ভি;ন্ন ঘটনা। এক মায়ের জন্য একজন সুদ;র্শনপাত্র খুঁজতে বিজ্ঞাপন দিয়েছেন এক তরুণী! বৃহস্পতিবার (৩১ অক্টোবর) টুইটারে মা;য়ের

স’ঙ্গে তোলা একটি সে;লফি পোস্ট করে সেখানে পাত্রের সন্ধান চাওয়া হয়।জানা গেছে ওই তরুণীর নাম আস্থা ভার;মা। ভারতের একটি বিশ্ববিদ্যালয়ে আ;ইন বিভাগের ছাত্রী তিনি। টুইটারে তিনি লিখেছেন, আমা’র প্রিয় মায়ের জন্য ৫০ বছর বয়সী হ্যা;ন্ডসাম পুরুষ খুঁজ;ছি! পাত্রকে অবশ্যই ভেজিটেরিয়ান ‘হতে হবে, কখনোই ম’দ্যপান করা যাব’ে না এবং সুপ্রতিষ্ঠিত ‘হতে হবে। এদিকে ওই ছা;ত্রীর দেয়া মায়ের জন্য

পাত্র খোঁজার পো;স্টটি মুহূর্তের মধ্যে ভাইরাল হয়ে যায়।পোস্টটি দেখে মেয়েটির সাহসের প্রশং;সাও করেছেন অনেকে। আবার কেউ কেউ স;মালোচনাও করেছেন। তার কাছ থেকে জানতে চেয়েছেন, মায়ের পা;ত্র খুঁজতে কোনো ঘটক বা বিবাহ-এজেন্সির কাছে যাননি কেন?জবাবে আস্থা জানি;য়েছেন,

তারা গিয়েছিলেন। কিন্তু আশা;নুরূপ ফল মেলেনি। তাই, বাধ্য হয়েই টুইটারের শরণাপন্ন ‘হতে হয়েছে।যুগ যুগ ধরে প্রচলিত হয়ে আসছে, কন্যা সন্তানের জন্য পাত্র খুঁজেন বাবা-মা। ভালো পাত্র দেখে নিজের মেয়েকে তুলে দিতে পার;লে স্ব;স্তির নিঃশ্বা’স ফেলেন তারা। তবে এবার ঘটলো সম্পূর্ণ ভি;ন্ন ঘটনা। এক মায়ের জন্য

একজন সুদর্শন পাত্র খুঁজতে বি;জ্ঞাপন দিয়েছেন এক তরুণী! বৃহস্পতিবার (৩১ অক্টোবর) টুইটারে মা;য়ের স’ঙ্গে তোলা একটি সেলফি পোস্ট করে সেখানে পাত্রের সন্ধান চাও;য়া হয়।জানা গেছে ওই তরুণীর নাম আস্থা ভা;রমা। ভারতের একটি বিশ্ববিদ্যালয়ে আইন বিভাগের ছাত্রী তিনি।

টুইটারে তিনি লিখেছেন, আমা’র প্রিয় মায়ে;র জন্য ৫০ বছর বয়সী হ্যান্ডসাম পুরুষ খুঁ;জছি! পাত্রকে অব;শ্যই ভেজিটেরিয়ান ‘হতে হবে, কখনোই ম’দ্যপান করা যাব’ে না এবং সু;প্রতিষ্ঠিত ‘হতে হবে।

এদিকে ওই ছাত্রীর দেয়া মা;য়ের জন্য পাত্র খোঁ;জার পোস্টটি মুহূর্তের মধ্যে ভাইরাল হয়ে যায়।পোস্টটি দেখে মেয়ে;টির সাহসের প্রশংসাও করেছেন অনেকে। আবার কেউ কেউ সমালো;চনাও করেছেন। তার কাছ থেকে জানতে চেয়েছেন, মায়ের পাত্র খুঁজ;তে কোনো ঘটক বা বিবাহ-এজে;ন্সির কাছে যাননি কেন?জবাবে আস্থা জানিয়েছেন, তারা গিয়ে;ছিলেন। কিন্তু আশা;নুরূপ ফল মেলেনি। তাই, বাধ্য হয়েই টুই;টারের শরণাপন্ন ‘হতে হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.