শতাব্দীপ্রাচীন ক;বর থেকে বেরিয়ে এলো না;রী;র অ;ক্ষত চুল, খানিকবা;দেই অদৃশ্য!

কবরস্থান বা সমা;ধিস্থল যে নামেই ডা;কুন না কেন এসব জায়গা সতর্কভাবেই সবাই একটু এড়ি;য়ে চলেন। রাতের বেলা তো দূরের কথা দিনেও গা ছমছমে পরি;বেশ বিরাজ করে এসব জা;য়গায় সবসময়।

তবে সম্প্রতি একটি পুরনো করবখা;নায় ঘুরছিলেন এক টি;কটকার। গা ছমছম করা পরিবে;শে এ দিক ও দিক ঘুরে দেখছিলেন তিনি। ছবিও তুলছিলেন। হঠাৎই শতাব্দীপ্রাচীন একটি কংক্রিটের কব;রে হোঁচট খান। নীচে তাকাতেই চমকে ওঠেন জোয়েল মরিসন নামে ওই টিকটকার।

তিনি দেখেন, কবরের ফাটল দি;য়ে বেরিয়ে আছে এক গোছা চুল। শতাব্দী;প্রাচীন ওই কবরের ভেতর থেকে বে;রিয়ে আসা ওই চুল দেখে চমকে উঠেছিলেন মরিসন। তার দাবি, শতাব্দীপ্রা;চীন কবর হলেও দেখে মনে হচ্ছিল স;দ্য কোনো নারীকে সেখানে কবর দেওয়া হয়েছে। চুলের ধরন দেখে প্রাথমিক ভাবে তা কোনো না;রীর বলেই মনে হবে বলে জানিয়েছেন মরিসন। কিন্তু কী ভাবে ওই চুল বেরি;য়ে এল? কী ভাবেই বা অক্ষত অব;স্থায় রয়েছে সেই চুল? মরিসন সেই ছবি পোস্ট করতেই নানা রকম জ;ল্পনা শুরু হয়ে গিয়েছে।

তবে ওই কবরস্থান বহু পুর;নো হওয়ায় কংক্রিটের বহু ক;বরে ফাটল ধরেছে। সেই ফা;টলগুলোতে আবার নানা ধরনের আগা;ছাও জন্মেছে। কিন্তু এ ভাবে ক;বর থেকে কোনো মৃত;দেহের চুল বেরিয়ে আসায় হত;বাক হয়েছেন অনেকেই। কেউ আবার রকি;সতা করে বলেছেন, ‘চুল টেনে দেখতে পার;তেন মরিসন!’ কেউ আবার এই আ;বহকে ‘নাইট অব দ্য লিভিং ডেড’ ছবির সঙ্গে তুলনা করেছেন।

ওটা কার চুল, কেনই বা ও ভাবে বেরিয়ে পড়ল তা নিয়ে ম;রিসন কবরস্থানের দায়ি;ত্বে থাকা ব্যক্তিকে জি;জ্ঞাসা করেছিলেন। কিন্তু তিনি নাকি সেই রহস্য উন্মো;চনের ধারেকাছেই ঘেঁ;ষতে চাননি। তবে তিনি দাবি করেছেন, ওই ক;বরের সামনে গিয়ে কোনো চু;লই তার নজরে পড়েনি।

Leave a Reply

Your email address will not be published.