পৃথিবীর মোট অর্থনীতির চেয়েও দামি ‘সিক্সটিন সাইকি’!

সৌরজগতে ঘূর্ণায়মান মঙ্গল ও বৃহস্পতি গ্রহের কক্ষপথের মাঝখানে অবস্থিত অ্যাস্টেরয়েড বেল্ট বা গ্রহাণুমণ্ডলে এমন একটি গ্রহাণু রয়েছে, যার পুরোটাই ধাতব পদর্থে তৈরি বলে ধারণা করছেন বিজ্ঞানীরা। তাদের মতে, গ্রহাণুটিতে থাকা ধাতব পদার্থের দাম পুরো পৃথিবীর মোট অর্থনীতির চেয়ে অনেক বেশি।

গত সপ্তাহে ‘প্ল্যানেটারি সায়েন্স জার্নালে’ প্রকাশিত এক গবেষণা প্রতিবেদনে এসব কথা জানান এর প্রধান লেখক ও যুক্তরাষ্ট্রের সাউথ-ওয়েস্ট রিসার্চ ইনস্টিটিউটের গবেষক ট্রেসি বেকার। তিনি হাবল স্পেস টেলিস্কোপের সাহায্যে নিখুঁতভাবে গ্রহাণুটিকে বিশ্লেষণ করেছেন। জ্যোর্তিবিজ্ঞানীরা এই গ্রহাণুটির নাম দিয়েছেন ‘সিক্সটিন সাইকি’।

ট্রেসি বেকার জানান, ‘সিক্সটিন সাইকি’ আকারে অনেক বড় এবং সৌরজগতে থাকা অন্যান্য গ্রহাণুর থেকে আলাদা। এর আগেও এমন উল্কাপিণ্ডের খোঁজ বিজ্ঞানীরা পেয়েছেন, যার পুরোটাই ধাতব পদার্থে তৈরি। কিন্তু ‘সিক্সটিন সাইকি’ সবার থেকে আলাদা। এমনকি এর পুরোটাই নিকেল ও লোহার তৈরি হতে পারে।

তিনি আরো বলেন, আমরা যে গ্রহে বসবাস করছি, সেই পৃথিবীর কেন্দ্রও ধাতব, ম্যান্টল আর ক্রাস্ট দিয়ে তৈরি। ধারণা করা হচ্ছে, ‘সিক্সটিন সাইকি’ও প্রথমে গ্রহ ছিল। সেটির কেন্দ্র গঠিত ছিল ধাতব, ম্যান্টল ও ক্রাস্ট দিয়ে। পরে সময়ের আবর্তে সৌরজগতের অন্য কোনো গ্রহ বা গ্রহাণুর বা অন্য কোনো কিছুর সঙ্গে ধাক্কা লেগে ক্রাস্ট ও ম্যান্টল হারিয়ে গেছে। তবে আসলেই গ্রহাণুটি পুরোটাই ধাতব পদার্থ দিয়ে তৈরি কি না সেটি নিশ্চিত হতে হলে ‘সিক্সটিন সাইকি’র কাছাকাছি গিয়ে গবেষণা করতে হবে

বেকার আরো ধারণা করেন, ‘সিক্সটিন সাইকি’তে যে পরিমাণ ধাতব পদার্থ রয়েছে পৃথিবীতে তার দাম ১০ হাজার কোয়াড্রিলিয়ন ডলার। অর্থাৎ, ১ এর পরে পর পর ১৯টা শূন্য দিলে যা হয় তাই। আরেকটু ভালোভাবে বুঝিয়ে বললে এই ধাতব পদার্থের দাম ১ লাখ কোটি কোটি ডলার। বাংলাদেশি মুদ্রায় যা প্রায় ৮৫ লাখ কোটি কোটি টাকা। পুরো পৃথিবীর মোট অর্থনীতির মূল্যও এর থেকে কম।

প্রসঙ্গত, এক ইতালীয় জ্যোতির্বিদ ১৮৫২ সালে প্রথম এ গ্রহাণুটি আবিষ্কার করেন।

About admin

Check Also

বি;য়ে;র অনু;ষ্ঠা;ন না করে ৩০০ জন গ;রী;ব মা;নুষ;কে পে;ট ভ;রে খাওয়ালেন নতুন স্বা;মী-স্ত্রী।

বাঙালির বি;য়ে মানে যেখানে তিন দিনের বিশাল অনুষ্ঠান, জাঁকজমক। আর সেখানে খাদ্যরসিক বাঙালির জন্য থাকবে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *